আপনার নিজের ভাগ্য নিজেকেই গড়ুতে হবে। কেউ একটুও সাহায্য করবে না।

Posted on

আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে TrickBD তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে TrickBD তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই TrickBD এর সাথেই থাকুন ।

নিজের ভাগ্য নিজেকেই গড়ুতে হবে।

Twentieth century শুরুতে পোলিও ইন্ডালাইস্ট কান্টিগুলোতে ভয়ঙ্কর রোগের আকার ধারণ করেছিল। এটা হাজার হাজার শিশুকে পঙ্গু করে দিচ্ছিল। তখন এই রোগের কোন ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হয় মানুষ এই রোগটিকে আল্লাহ ইচ্ছে বলে মানতে শুরু করে। আমরা যখন কোন কিছু রেস্পন্সিবিলিটি নেওয়া থেকে বাঁচতে চাই বা কোন কিছু লজিক্যালি কোন ব্যাখ্যা খুঁজে না পাই তখন সেটাকে আমরা ভাগ্য বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি। এটা একটা সান্ত্বনা দায়ক শব্দ বটে কিন্তু এর জন্য আমরা আরও দুর্বল হয়ে পড়ি।

এরপর যখন উন্নয়নশীল দেশগুলিতে Polio ওকে একটা বড় সমস্যা হিসেবে গণ্য করা হয় তখন দেশজুড়ে পোলিওর ইমুনাইজেশন প্রোগ্রাম শুরু হয়। ১৯৮৮ সালে এক বছরে প্রায় ৩,৫০,০০ শিশুকে পোলিও তে আক্রান্ত হয়। এরপর ২০১৪ সালের সংখ্যাটা কমে ৪১৬ তে এসে দাঁড়ায়। ২০১২ মধ্যে পোলিও আক্রান্ত দেশগুলি লিস্ট থেকে ইন্ডিয়া নিজেকে বার করে আনে। একজন মানুষ হিসেবে আমাদের উচিত নিজের ইচ্ছামত আশেপাশের পরিস্থিতি গুলোকে বদলে ফেলতে পারা।

কিন্তু বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষকেই বরং তাদের আশেপাশে সিচুয়েশন নিজের ইচ্ছে অনুযায়ী বদলে নিচ্ছে। সমস্যাটা হলো যেগুলোকে আপনি আমি হিসেবে জানেন সেগুলো আসলে আপনার দ্বারা কিছু কিছু জিনিস জড়ো হয়ে তৈরি হয়েছে। আপনার দেহ ছোটবেলা থেকে আপনি যে খাবার খেয়েছেন সেগুলো জড়ো হয়ে তৈরি হয়েছে। আপনার মন ছোটবেলা থেকে আপনি আপনার ফাইভ সেন্সেস এর মাধ্যমে যে সমস্ত ইম্প্রেশন গাধার করেছেন সেগুলো জড়ো হয়ে তৈরি হয়েছে।

যা কিছু আপনার দ্বারা কোন কিছু জড়ো হওয়ার ফলে তৈরি হয়েছে সেটা হয়তো আপনার হতে পারে কিন্তু সেটা কখনোই আপনি হতে পারেন না। তাহলে আপনি কি কে সেটা এখনও আপনার অভিজ্ঞতায় আসতে বাকি রয়েছে। সত্যিই হলো এটাই অবচেতনভাবে আপনি আপনার ভাগ্যকে নির্ধারণ করেন। যদি আপনি আপনার নিজের শরীরের উপর সম্পূর্ণ মাস্ট্রি অর্জন করতে পারেন তাহলে আপনার জীবন এবং ভাগ্যের ১৫-২০ পার্সেন্ট আপনার নিজের হাতে থাকবে।

যদি আপনি আপনার নিজের মনের উপর সম্পূর্ণ মাস্ট্রি অর্জন করতে পারেন তাহলে আপনার জীবন এবং ভাগ্যের ৫০-৬০ পার্সেন্ট আপনার নিজের হাতে থাকবে এবং যদি আপনি আপনার নিজের Life Energy গুলোর উপর সম্পূর্ণ মাস্ট্রি অর্জন করতে পারেন তাহলে আপনার জীবন এবং ভাগ্য সম্পূর্ণ 100% আপনার নিজের হাতে থাকবে। নিজের ভাগ্য নিজের হাতে নেওয়া মানে এই নয় যে বাইরের দুনিয়াতে আপনি যেমন চাইবেন সবকিছু সেইভাবে ঘটবে।

বাইরে দুনিয়া কোনদিনই আপনার ইচ্ছে মত চলবে না কারণ সেটা অসংখ্য জিনিসের উপর নির্ভর করছে। নিজের ভাগ্য নিজে গড়ে তোলার মানে নিজেকে এরকম ভাবে তৈরি করা যে যাতে আপনার চারিপাশের যাই ঘটুক না কেন আপনি সেই সিচুয়েশন গুলো দ্বারা দমে যাবেন না। বরং আপনি সেগুলো উপরে চড়ে বসবেন। আপনার জীবনে বিভিন্ন সমস্যা গুলো রাগ, ভয়, দুশ্চিন্তা অস্বস্তির আকারে প্রকাশ পাচ্ছে কারণ আপনার যে বেসিক ফাকাল্টিজ আপনার শরীর-মন এবং লাইফ এনার্জির গুলো তাদের নিজেদের ইচ্ছেমত যা খুশি করে চলেছে।

যখন আপনি দুঃখ-বেদনার রাগ এসমস্ত অনুভব করছেন। তখন আপনার উচিত বাইরে এদিক ওদিক না তাকিয়ে নিজের ভিতরে কি ঘটছে সেদিকে একবার লক্ষ্য করা। আপনার জীবনে শান্তি আসার জন্য একমাত্র যে মানুষটাকে ঠিক করা দরকার সেটা হলেন আপনি নিজে। আপনি যেটা ভুলে গেছেন সেটা হলো এই যে আপনার শরীর খারাপ হলে যে মানুষটার ওষুধ খাওয়া দরকার সেটা হলেন আপনি নিজে। আপনার যদি খিদে পায় তাহলে যে মানুষটার খাবার খাওয়া দরকার সেটা হলেন আপনি নিজে।

তাই শুধুমাত্র যার ঠিক হওয়া প্রয়োজন সেটা হলেন আপনি নিজে। কিন্তু সামান্য জিনিস টুকু বুজতেই মানুষ সারাজীবন সময় লাগিয়ে দেয়। একদিন এক শীতের সকালে মিশিগান শহরে একজন বৃদ্ধ লোক আইস ফিশিং করতে বেরিয়ে ছিলেন। তখন ঘড়িতে পাচ্ছিল প্রায় সকাল 10:00 মাছধরা যে হাতের মোয়া না এটি অত্যন্ত ধৈর্যের একটা কাজ তিনি সেটা খুব ভালোভাবে জানতেন। এভাবে ধৈর্য ধরে বসে থাকতে থাকতে বেলা গড়িয়ে বিকেল চারটে বেজে গেল কিন্তু তিনি তখন একটা মাছও ধরতে পারলেন না। তাঁর বাস্কেট তখন সম্পূর্ণ খালি।

এমন সময় সেখানে একটা অল্পবয়স্ক যুবক এসে হাজির হলো তার হাতে একটা বড় বুম্বক্স যেটা খুব জোরে মিউজিক বাজছিলো। সে কাছেই একটা জায়গায় বরফে গর্ত করে মাছ ধরার জন্য বসে পড়ল। পাশে তার বুম্বক্স এখনো মিউজিক গাগা করে বেজে চলেছে। বৃদ্ধ লোকটি অবজ্ঞা শুনে ছেলেটির দিকে তাকিয়ে বললেন। আসছে আমি সেই সকাল থেকে এখানে চুপচাপ বসে আছি তাও এখনো একটাও মাছ ধরতে পারলাম না আরে গর্ধবটা ভাবছে এতো জোরে গান বাজাতে বাজাতে ও মাছ ধরতে পারবে তাও নাকি বিকেল চারটের সময়।

এখনকার ছেলেমেয়েগুলোর মাথায় সত্যি কিছু নেই। কিন্তু এর 10 মিনিটের মধ্যেই ছেলেটি একটি বড় মাছ ধরে ফেলল। বৃদ্ধ লোকটা এটা দেখে এটা কি ছেলেটা সৌভাগ্য বলে ইগনোর করে আবার নিজের মাছ ধরায় মন দিলেন। তার আরো 10 মিনিট পর ছেলেটি আবার একটা বড় মাছ ধরে ফেলল। বৃদ্ধ লোকটা এবার এই ব্যাপারটাকে ইগনর করতে পারলেন না। তিনি ছেলেটির দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকলেন আর ঠিক সেই সময় ছেলেটি আবার একটা বড় মাছ ধরে ফেললো।

এবার তিনি আর এই ব্যাপারটাকে কোনভাবেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না। থাকতে না পেরে নিজের অহংকার কে সরিয়ে রেখে। বৃদ্ধ লোকটি আস্তে আস্তে ছেলেটির কাছে এগিয়ে গিয়ে বললো রহস্যটা কী আমি এখানে সেই সকাল থেকে চুপচাপ বসে আছি কিন্তু এখনও একটাও মাছ ধরতে পারলাম না এটুকু সময়ের মধ্যে তুমি তিনটে বড় বড় মাছ ধরে ফেললে। ব্যাপারটা কি হচ্ছে…?

ছেলেটি এটা শুনে বলল Ru Ra Ra Ru Rum Rum বৃদ্ধ লোকটি তার কথা শুনে কিছুই বুঝতে পারলে না। কানের পিছনে হাত দিয়ে তিনি আবার জিজ্ঞাসা করলেন কি বলছো…? ছেলেটি তার বুম্বক্স এর ভলিউম কমিয়ে আবার বলল Ru Ra Ra Ru Rum Rum আবার একই উত্তর পেয়ে তিনি এবার খুব রেগে গিয়ে তাকে বললেন দুর ছাই তুমি কি বলছো আমি তো কিছুই বুঝতে পারছি না। ছেলেটি এবার একটা জিনিস তার মুখ থেকে থু করে হাতে ফেলে দিয়ে বলল আপনাকে মাছের চারাগুলোকে গরম রাখতে হবে।

যদি আপনি সঠিক কাজ না করেন তাহলে কোন দিনই আপনার সাথে সঠিক কিছু ঘটবে না। আদর্শ এবং মতামত শুধুমাত্র সামাজিকতার ফলাফল মাত্র। আপনি নিজেকে হয়তো একজন ভালো মানুষ বলে মনে করতে পারেন। কিন্তু আপনি যদি নিজের ফুলের বাগানের ঠিকমতো জল না দেন তাহলে কি কখনো ফুল ফুটবে। তাই ভালো ফলাফল পেতে চাইলে সঠিক কাজটা অবশ্যই করতে হবে। একমাত্র তখনই আপনার ভাগ্য হান্ডেট পার্সেন্ট আপনার নিজের হাতে থাকবে। এটা কিন্তু কোন সাধারন প্রমিস নয় এটাই এই বইয়ে অথর সাধুগুরু দেওয়া গ্যারান্টি।

Trickbd তে অনেকেই পোস্ট কতে চান কিন্তু করতে পারছেন না। আপনারা Ictbn.Com ওয়েবসাইটে পোস্ট করতে পারেন।এখানে একাউন্ট করলেই author।এখানে প্রতি পোস্টের জন্য ৫-৫০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়।পোস্টের মানের উপর ভিত্তি করে। ICTBN.Com

আশা করি সবাই সবকিছু বুঝতে পেরেছেন। কোথাও সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানাবেন অথবা ফেসবুকে জানাতে পারেন ফেসবুকে আমি


The post আপনার নিজের ভাগ্য নিজেকেই গড়ুতে হবে। কেউ একটুও সাহায্য করবে না। appeared first on Trickbd.com.

Source:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *