এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন?

বর্তমান সময়ে এসইও এর গুরুত্ব অনেক বেশি। এসইও এর পূর্ণাঙ্গ রূপ সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। অর্থাৎ আপনার কোন কন্টেন অনুসন্ধান করার সাথে সাথে সবার আগে উপরে থাকবে। বিষয়টি একটু জটিলতা ও বটে তবে খুব একটা কঠিন কাজ নয়।

একটু চেষ্টা করলে যে কেউ এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করতে পারবে। যদিও আজকের মূল টপিক এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন? এসইও শুধু যে আর্টিকেলের ক্ষেত্রে তা কিন্তু নয়, ইউটিউবাররা ও এই এসইও এর সাথে জড়িত!

কিন্তু আজকে আমরা, এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। আপনি যেহেতু এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করতে চাচ্ছেন তাহলে। প্রথমত কয়েকটি বিষয়ে আপনার জানা খুবই জরুরী। যেগুলো আপনার এসইও আর্টিকেল এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন?

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেলঃ মূলত কন্টেন কোয়ালিটি এর নিয়ম-নীতি সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে, আপনার আর্টিকেলটি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল হবে। তবে নিয়ম-নীতিগুলো কি কি বিষয়ে নিশ্চয়ই আপনাদের জানা জরুরী,

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য, মোট আমরা দশটি বিষয়ে আলোচনা করব। যার পাঁচটি আলোচনা আজকের আর্টিকেলে আমরা বিস্তারিত জানব। এবং দশটি বিষয়ে আপনারা বিস্তারিত, সঠিক নিয়ম মেনে আর্টিকেল তৈরি করলে,

আপনার আর্টিকেলটি অবশ্যই এসইও ফ্রেন্ডলি ভাবে তৈরি হবে। সঠিক নিয়মে আর্টিকেল তৈরি করে আপনার ব্লগে পাবলিশ করলে, আপনার আর্টিকেলটি এসইও ফ্রেন্ডলি আকারে মানুষের কাছে পৌছাবে। তাই চলুন এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য পাঁচটি নিয়ম আজকের আর্টিকেলে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করি।

১. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য Keyword Research

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল সহজ একটি কাজ নয়। আপনি কিওয়ার্ড রিসার্চ ব্যতীত আর্টিকেল আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করলে, সেটা এসইও ফ্রেন্ডলি ভাবে কখনোই সেটআপ হবে না। মানুষ কোন বিষয়ে কতটুকু জানতে আগ্রহী, এবং আপনার কোন কন্টেন মানুষ পড়বে সেগুলো জানা জরুরী।

তার জন্য মূলত আপনার কিওয়ার্ড রিসার্চ করা খুবই জরুরী। অনেকেই পেইড ভাবে কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য বিভিন্ন টুল ব্যবহার করে। আপনি বিভিন্ন ধরনের টুল ফ্রী তে ব্যবহার করে কিভাবে রিসার্চ করতে পারেন। কারণ অনেকের ফ্রী টুল ব্যবহার করে কিওয়ার্ড রিসার্চ করে থাকে।

এখানে ক্লিক করুন

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল পাবলিশ করতে কিওয়ার্ড রিসার্চ করা খুবই জরুরী। সুতরাং উপরের লিংকে ক্লিক করলে আপনারা একটি টুল পেয়ে যাবেন। যেট কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আপনারা চাইলে উপরের লিংকে ক্লিক করে টুল এর সাহায্যে এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর জন্য, কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে পারেন।

২. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করার জন্য, Post Title, Meta Title

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরিঃ আপনি যখন কোনো একটি কনটেন্ট তৈরি করবেন, তখন নিশ্চয় একই টাইটেল দিতে হবে। মূলত এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করার ক্ষেত্রে, আপনার পোস্টের টাইটেল খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

প্রায় 40 শতাংশ এসইও ফ্রেন্ডলি করার জন্য টাইটেল এর গুরুত্ব বেশি। অর্থাৎ এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর ক্ষেত্রে আপনার পোস্টের টাইটেল 40 পার্সেন্ট এসইও এর কাজ করে থাকে। তার জন্য আপনার কনটেন্ট এর মূল টপিক রিসার্চ করে পোস্টের টাইটেল দিবেন।

টাইটেল যেন আবার খুব বেশি বড় দিবেন না। 7 থেকে 10 শব্দের ভিতর আপনার টাইটেল দেওয়ার চেষ্টা করবেন। এবং এমন টাইটেল দিবেন টপিকের উপর যেটা মানুষ দেখার সাথে সাথে ক্লিক করে। তাই আকর্ষণীয় টপিকঃ রিলেটেড টাইটেল দিতে হবে। যেটা আপনার এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর ভূমিকা পালন করবে।

৩. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর জন্য Post Description

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেলঃ প্রিয় বন্ধুগণ পোষ্টের ডেসক্রিপশন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার টপিক রিলেটেড মূল কিওয়ার্ড পোস্ট এর ডেসক্রিপশনে দেওয়া। আপনার আর্টিকেল এর মূল টপিক লোকেরা যদি তাদের প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য ডেসক্রিপশনে,

পেয়ে যায় তাহলে আপনার আর্টিকেলটি পড়তে তারা আরো বেশি আগ্রহী হবে। এবং ততোই আপনার আর্টিকেল এসইও ফ্রেন্ডলি দিকে এগিয়ে যাবে। মূলত এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর জন্য পোষ্ট ডেসক্রিপশন খুবই জরুরী একটি বিষয়।

তাই আপনি আর্টিকেল কনটেন্ট কোয়ালিটি ঠিক রেখে আপনার আর্টিকেলের, পোস্ট দেস্ক্রিপশন এডিট করে সেখানে টপিকঃ রিলেটেড সঠিক তথ্য গুগোল একটু কষ্ট করে লিখে দিবেন। যেটা আপনার আর্টিকেল এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল আরো একটু ভূমিকা পালন করবে।

৪. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করার জন্য, Image Alt Tag

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরিঃ আপনি যখন একটি কোয়ালিটি কনটেন্ট তৈরি করে আপনার ব্লগ সাইটে পাবলিশ করবেন। তখন নিশ্চয় একটি ইমেজ প্রয়োজন হবে তাইনা! ইমেজ এর গুরুত্ব অনেক বেশি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করার জন্য!

মূলত আপনার ইমেজের রিনেম অবশ্যই আপনার আর্টিকেল এর মূল টপিকঃ রিলেটেড থাকে। কারণ গুগোল আপনার ইমেজ দেখবে না, দেখলে ইমেজের আল্ট্রা ট্রাকগুলো দেখবে। সুতরাং সুন্দর হবে আপনার ফিউচারেড ইমেজ,

ভালোভাবে অপটিমাইজেশন করে নিবেন। কোন কিছু বাদ রাখবেন না সবকিছু টপিকের উপরে নির্ভর করে দেওয়ার চেষ্টা করবেন। যেন সহজে যে কেউ বুঝতে পারে ইমেজটি আসলে কি রিলেটেড, যেটা কিনা আপনার এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

৫. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করার জন্য Internal Links

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেলঃ টি বন্ধুগণ আপনার ব্লগে অন্যান্য আর্টিকেল এর লিংক গুলো, আপনার নতুন আর্টিকেল এর সাথে ইন্টারনাল লিংক করা খুবই জরুরী। যদি আপনি এই কাজটি করেন আপনার টপিক রিলেটেড, এর ওপর আরও কন্টেন আপনার ওয়েবসাইটে পোস্ট করা থাকে,

তাহলে ওই গুলোর ইন্টারনাল লিংক করে আপনার নতুন আর্টিকেল এর সংযুক্ত করুন। এটাও কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি কোয়ালিটি কনটেন্ট তৈরি করার জন্য। সুতরাং আপনি আপনার অন্যান্য পোস্ট এর লিঙ্ক নতুন আর্টিকেলে এড করে ইন্টারনেট লিংক করে দিবেন। টপিকঃ রিলেটেড ইন্টারনাল লিংক করলে সেটাও এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল হিসেবে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

প্রিয় বন্ধুরা উপরোক্ত নিয়ম নীতি, একটি কোয়ালিটি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মূলত এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার ক্ষেত্রে, আমরা সেরা দশটি বিষয়ে আলোচনা রয়েছে। তাই আজকের এই আর্টিকেলে আমরা 5 টি টপিক নিয়ে বিস্তারিত বলার চেষ্টা করেছি।

এই ছোট্ট ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে পারেন নিয়মিত। এখানে বিভিন্ন ধরনের অনলাইন রিলেটেড আর্টিকেল পাবলিশ করা হয়
projuktibuzz.com

আশা করি উপরোক্ত নিয়ম-নীতি থেকে আজকে একটি কোয়ালিটি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করা সম্ভব। আর বাকি পাঁচটি টপিক নিয়ে আগামী আর্টিকেলে আমরা বিস্তারিত জানার চেষ্টা করব। আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে একটু হলেও উপকৃত হয়েছেন আপনারা। আর্টিকেল লেখার জন্য সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

The post এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন? appeared first on Trickbd.com.

Source: