এয়ারড্রপে কাজ করে মাসে 100$-500$ পর্যন্ত ইনকাম করুন,এয়ারড্রপ সম্পর্কে একদম A টু Z মিস করবেন নাহ।

Posted on

♥♥আসসালামু আলাইকুম♥♥

♥সবাই কেমন আছেন?আশা করি সবাই ভালো আছেন।আর আপনাদের দোয়ায় আমিও আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।

 

পোস্টের বিষয়ঃ

?আজকে আমি Airdrop এর A টু Z এই পোস্টে আলোচনা করবো।আপনারা চাইলে লেখাপড়ার পাশাপাশি এয়ারড্রপে কাজ করে মাসে ১০-৫০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যারা Airdrop এ একদমই নতুন তারা কিভাবে কাজ করবেন,এয়ারড্রপ কি?এয়ারড্রপে কাজ করে কিভাবে পেমেন্ট পাবেন?একদম সব কিছু আলোচনা করার চেষ্টা করবো ইংশাআল্লাহ।আপনারা ধৈর্য সহকারে পুরো পোস্টটি পড়লে এয়ারড্রপ সম্পর্কে আপনাদের সম্পূর্ণ ধারণা ক্লিয়ার হয়ে যাবে।কিছু বিষয় যেটা লিখে বা স্ক্রিনশট দিয়ে বুঝাতে গেলে পোস্ট খুবই বড় হবে তাই কিছু বিষয় ভিডিও এর মাধ্যমে বুঝানোর চেষ্টা করবো।

 

এয়ারড্রপ (Airdrop) কি?

✅একটি উদাহরণের মাধ্যমে ব্যাপারটি বুঝানো যাক- ধরে নিন কোন একটি কোম্পানি বাজারে নতুন এসেছে। অবশ্যই নতুন কোম্পানিটি সম্পর্কে হাতেগোনা কয়েকজন ছাড়া তেমন বেশি লোকজন জানবে না, তাই না? তখন সেই কোম্পানি বেশি পরিমাণ মানুষদেরকে তাদের কোম্পানি বা কোম্পানির প্রোডাক্ট সম্পর্কে প্রচারণার জন্য বিভিন্ন ধরনের অফার দিয়ে থাকেন। এমনকি এমন অনেক কোম্পানিও দেখা যায় যে, নতুন অবস্থায় তারা সম্পূর্ণ ফ্রিতে গ্রাহকদেরকে তাদের কোম্পানির বিভিন্ন প্রডাক্ট ব্যবহারের জন্য দিয়ে থাকে। যার মূল উদ্দেশ্য থাকে কোম্পানীর পরিচিতি বৃদ্ধি করা। ঠিক একই রকম হচ্ছে এয়ারড্রপ।

মূলত এয়ারড্রপের মাধ্যমে বিভিন্ন কোম্পানি তাদের নতুন ধরনের কয়েন বা ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটে নিয়ে আসে। যেহেতু কয়েনটি নতুন এবং কয়েনটি সম্পর্কে মানুষ একদমই জানেনা, তাই সেটি সম্পর্কে মানুষকে জানানোর জন্য এবং উক্ত কোম্পানিগুলোর সোশ্যাল মিডিয়াতে অডিয়েন্স বৃদ্ধির জন্য তারা এয়ারড্রপের মাধ্যমে গ্রাহকদেরকে নির্দিষ্ট পরিমাণ নতুন কয়েন বা ক্রিপ্টোকারেন্সিটি ফ্রিতে দিয়ে থাকেন। এতে করে খুবই স্বল্প সময়ের মধ্যেই নতুন টোকেনটি পরিচিতি লাভ করে। আর এই সম্পূর্ণ ব্যাপারটি হচ্ছে এয়ারড্রপ।

 

কেন নতুন লঞ্চ হওয়া কয়েন বা ক্রিপটোকারেন্সি গুলো আমাদের ফ্রি টোকেন/ডলার দিবে?

✅নতুন যে কোম্পানি গুলো মার্কেটে আসে তারা তাদের কয়েন মার্কেটে ভালো ভাবে চালু করতে বা তাদের কয়েনটা মার্কেটে ভালো একটা অবস্থান ধারণ এবং সচল রাখতে অথবা তাদের কয়েনটি জনপ্রিয়(পরিচিত) করতে তারা কিছু কয়েন ফ্রিতে দেয় একটা নির্দিষ্ট সিস্টেম বা রেজিষ্ট্রেশনের মাধ্যমে।

নতুন লঞ্চ হওয়া ক্রিপটোকারেন্সি গুলোর প্রধান লক্ষ হচ্ছে তাদের কোম্পানির প্রচার করা। সোশ্যাল মিডিয়াতে তাদের কারেন্সি/কোম্পানির ভালো রেপুটেশন গড়ে তোলা। কারণ এই প্রচার/রেপুটেসন এর মাধ্যমে তারা তাদের কারেন্সি/কোম্পানির টোকেন গুলো ইনভেস্টর দের কাছে পোঁছাতে পারে যেন তাদের টোকেন গুলো সেল হয়। তাদের কারেন্সি/কোম্পানির প্রচার/রেপুটেশন আমরাই গড়ে তুলি কারন এখানে আমাদের কাজ হচ্ছে তাদের কোম্পানির সোশ্যাল একাউন্ট গুলো ফলো, সাবস্ক্রাইব করে সোশ্যাল মিডিয়াতে এঙ্গেজমেন্ট বা প্রমোট করা। এই জন্যই মুলত তারা আমাদের নির্দিষ্ট এমাউন্ট এর টোকেন ফ্রিতে দিয়ে থাকে।

 

Airdrop এ কাজ কি?

  1. যে কয়েন এ কাজ করবেন তাদের অফিসিয়াল Telegram গ্রুপ/চ্যানেলে এড হওয়া ।
  2. যে কয়েন এ কাজ করবেন তাদের অফিসিয়াল Facebook পেইজ এ লাইক দেয়া।
  3. যে কয়েন এ কাজ করবেন তাদের অফিসিয়াল Twitter এ ফলো করা।
  4. যে কয়েন এ কাজ করবেন তাদের অফিসিয়াল Youtube এ সাবস্ক্রাইব করা।
  5. যে কয়েন এ কাজ করবেন তাদের অফিসিয়াল Medium, Reddit, Linkdin,Instagram ফলো করা।

এ কাজ গুলো আপনাকে একবারই করতে হবে।

 

Airdrop থেকে মাসে কত টাকা আয় করা সম্ভব?

✅অনেকে অনেক কথাই বলবে আজকে আমি একদম সত্য কথা বলবো এয়ারড্রপ থেকে আসলে কত টাকা আর্ন করা সম্ভব,এয়ারড্রপে কোম্পানি মার্কেটে আসা থেকে কয়েন ডিস্ট্রিবিউশন পর্যন্ত একটু সময়ের প্রয়োজন আছে,আর তাই এখানে প্রথম মাসে ইনকাম সম্ভবনা একটু কমই থাকে।কপাল ভালো থাকলে তো প্রথম মাস থেকেই ইনকাম শুরু হবে।এয়ারড্রপে আসলে প্রতি মাসে কত টাকা আসে এটা বলা মুশকিল,কারণ কোনো মাসে আপনার ২ হাজার টাকা ও ইনকাম হতে পারে আবার কোন মাসে ৫০ হাজার ও ইনকাম হতে পারে।এখানে ফিক্সড করা নেই,সম্পূর্ন নির্ভর করবে আপনার ইচ্ছা শক্তি আর ধৈর্যের উপর।

 

এয়ারড্রপে কত ঘন্টা সময় কাজ করতে হয়?

✅ এয়ারড্রপে আসলে কোন সময় নির্দিষ্ট করা নেই।আপনার যখন ইচ্ছা হয় তখনেই কাজ করতে পারবেন।আর প্রত্যেকটা কাজ করতে আপনার সময় লাগবে সর্বোচ্চ ২-১০ মিনিট ।আর অনেক কাজেই লিমিট থাকার কারণে বা ধরেন কিছু কাজে প্রথম ৫০০০ জনকে কয়েন গুলা দিবে। এখন সেক্ষেত্রে কাজ আসার সাথে সাথেই করে রাখাই ভালো।আগে জয়েন করলেই অনেক কাজে লিমিট থাকার কারণে উইনার হওয়ার সুযোগ বেশিই থাকে।

 

কিভাবে Airdrop এ অংশগ্রহন করবেন?

✅ আপনি তিন ভাবে এয়ারড্রপ এ অংশগ্রহন করতে পারবেন। Exchange Airdrop:- এখানে তাদের নিজস সাইটে রেজিষ্ট্রেশন এবং আইডি ভেরিফাই করতে হবে। Telegram Bot Airdrop:- এখানে Telegram Bot এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট টাস্ক ফলো করতে হবে এবং আপনার Ethereum Wallet Submit করতে হবে। যেমন- Facebook , Twitter, Youtube, Instagram, Linkdin Follow ETC. Google Form:- এখানে আপনার Email ও Ethereum Wallet Submit করতে হবে। এবং Facebook Page , Twitter , Instagram , Linkdin ETC. Fllow করতে হবে।

 

Airdrop এ কাজ করতে নিচের একাউন্ট গুলো অবশ্যই লাগবে-

▪Telegram Account
▪ Facebook Account
▪ Twitter Account
▪Instagram Account
▪Reddit Account
▪Linkdin Account
▪Medium Account
▪Discord Account
▪Youtube Account
▪Trust Wallet Token
▪Poket Sol wallet

আপনারা উপরের সব একাউন্ট খুলে Username Set করে নিবেন, একাউন্ট খোলা একদম সহজ ফেসবুকের মতোই আর সব গুলোর Setting এ গেলেই Username Change করার অপশন পাবেন, শুধুমাত্র ফেসবুকের username অন্যভাবে সেট করতে হয় সেটা Youtube দেখলেই বুঝবেন এবং Username সবগুলা মুখস্থ রাখবেন এই সব Username এক দেওয়া ভালো, যেমন- Mizan01722 এটা আমার,নামের সাথে মিল রেখে সব জায়গায় দেওয়া যাবে।

 

কাজ করবেন কিভাবে?

✅ এখন আপনার সব কিছু রেডি,কাজ করবেন কিভাবে?নিচে একটি ভিডিও দিলাম ভিডিওতে কাজ কিভাবে করবেন সব দেখানো হয়েছে।সবাই কষ্ট করে একটু ভিডিও টা দেখে নিবেন। স্ক্রিনশটের মাধ্যমে যদি কাজটা শিখাতে যাই অনেক অনেক দৈর্ঘ হবে এবং অনেক কিছু মিছিং হবে।তাই ভিডিও করা।

Winner লিষ্ট চেক এবং পেমেন্ট রিসিভঃ

✅ এয়ারড্রপে বিভিন্ন রকম কাজ আসে,আর তাই তাদের উইনার লিষ্ট ও বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে।এগুলা চেক করা একটু কষ্টকর ব্যাপার।আমি ভিডিওতে একদম সুন্দর ভাবে বুঝিয়েছি কিভাবে আপনারা সব ধরনের উইনার লিষ্ট চেক করবেন এবং পেমেন্ট রিসিভ করবেন☺
নিচের ভিডিও টা দেখুন।

 

 

🔰অনেকে কাজে বা ব্যস্ত থাকেন পেমেন্ট রিসিভ পোস্ট গুলা পড়া বা ফলো করা হয়ে উঠে নাহ।তাই অনেক পেমেন্ট মিস হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থেকেই যায়। আমি ২ টা পদ্ধতি দেখাবো যেটার মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই পেমেন্ট রিসিভ করতে পারবেন একটাও মিস যাবে নাহ। একটা পদ্ধতি(বট) আপনাকে নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানায় দিবে আপনি কোন কোন পেমেন্ট রিসিভ করছেন।আরেকটা পদ্ধতিতে আপনি সার্চ বা আপনার address টি সার্চ করে দেখতে পারবেন আপনি কি কি পেমেন্ট রিসিভ করছেন।

 

✅পদ্ধতি নাম্বার ১ :-Etherdrops Tracking Bot

@EtherDROPS4_bot প্রথমে এটা কপি করে আপনার Telegram অ্যাপ সার্চ করুন।তারপর নিচের বট টা সিলেক্ট করুন।

তারপর Start এ ক্লিক করুন।

তারপর Add wallet এ ক্লিক করুন,তারপর BSC তে ক্লিক করুন।

তারপর আপনার Trust wallet এ গিয়ে Bsc/Bep20/Smart Chain সব গুলোই একই কপি অপশনে ক্লিক করে address কপি করুন তারপর বটে গিয়ে Sent করুন।

Address Sent করার পর 1 দিয়ে রিপ্লাই করুন।আপনার প্রথম ওয়ালেট কানেক্ট হয়ে গেছে এখন Add More to Main এ ক্লিক করুন।

তারপর Add Wallet তারপর ETH সিলেক্ট করুন।আবার আপনার Eth Address সেন্ট করুন,তারপর 2 লিখে রিপ্লাই করুন।

ETH Address

কাজ শেষ এখন থেকে Bsc এবং ETH নেটওয়ার্কের যত রকম পেমেন্ট রিসিভ হবে এবং সব রকম লেনদেন গুলা নিচের মত আপনাকে নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানায় দিবে।

 

🔰পদ্ধতি নাম্বার ২ :- Address Scan

 

প্রথমে ব্রাউজারে গিয়ে bscscan. com লিখে সার্চ করবেন।আর Sol ওয়ালেট এর জন্য Solscan. com সার্চ করলেই নিচের মত আসবে। ফাঁকা বক্সে আপনার bsc address দিয়ে সার্চ করলে নিচের মত আপনার ওয়ালেটে কতটা টোকেন আছে show করবে।

তারপর আপনার চেক করে দেখবেন কোন টোকেনটি unknown এবং আপনার ওয়ালেট এ নেই সেটার উপর ক্লিক করবেন।

তারপর নিচের মত Contact address পাবেন ওটা কপি করে Trust wallet এ গিয়ে add করে নিবেন।কিভাবে add করবেন ২ নং ভিডিও তে দেখানো হয়েছে দেখে নিবেন।

 

 

👉আপনি যদি লেখাপড়ার পাশাপাশি এয়ারড্রপে কাজ করে মাসে ৮-৫০ হাজার টাকা ইনকাম করতে চান,তাহলে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেল এবং ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

✅ Subscribe My Youtube Channel

✅ Subscribe My Telegram Channel

 

👉আজ এখানেই শেষ করছি,সবাই ভালো থাকুন সুস্হ থাকুন আর নিত্য নতুন নতুন ট্রিক্স ও টিপস এবং অনলাইন ইনকাম বিষয়ে পোস্ট পেতে ট্রিকবিডি এর সাথেই থাকুন।

 

♥♥আল্লাহ হাফেজ♥♥

 

The post এয়ারড্রপে কাজ করে মাসে 100$-500$ পর্যন্ত ইনকাম করুন,এয়ারড্রপ সম্পর্কে একদম A টু Z মিস করবেন নাহ। appeared first on Trickbd.com.

Source:

Leave a Reply

Your email address will not be published.