৪টি সহজ উপায় আপনার দৈনন্দিন কাজের Daily Routine বানান খুব সহজেই

Posted on

আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে TrickBD তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে TrickBD তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই TrickBD এর সাথেই থাকুন ।

৪টি সহজ উপায় Daily Routine বানান


আমরা সবাই একটা well-planned এবং অরগানাইজ দিন পছন্দ করি। এমন একটা দিন যেদিন আমাদের প্ল্যান করা সবগুলো কাজই আমরা কমপ্লিট করতে পারি। এরকম একটা দিন কি আমরা বলি Perfect Day. কিন্তু কঠিন বাস্তব টা হল আমরা বেশিরভাগ দিন Perfect Day এচিভ করতে পারি না আর এটা একদমই স্বাভাবিক কিন্তু আমরা একটা Perfect Day এচিভ করতে পারার চেষ্টা অবশ্যই করতে পারি।

যে কারণে আমরা আমাদের প্ল্যান কাজ গুলো কমপ্লিট করতে পারি না সেটা হলো আমরা ভুল পদ্ধতিতে আমাদের দিনটা প্ল্যান করি। তো আমাদের একটা ফ্যাক্ট টাকে মেনে নিতে হবে লাইফ সবসময় পার্ফেক্ট উপায় চলে না। সেজন্যই আমরা মাঝেমধ্যেই আমাদের কাজগুলো থেকে ছিটকে যায়। এই আর্টিকেলটিতে আমি আপনার সাথে চারটি টেকনিক শেয়ার করবো যেগুলো দ্বারা আপনি আপনার Almost Perfect Day Achieve করতে পারবেন ।

প্রথম টেকনিকটার নাম হলো Task Management Quadrant এই কোয়াড্রেন্ট অনুযায়ী আপনার কাজগুলোকে প্রথমে চার ভাগে ভাগ করতে হবে ।

Task 1 এ থাকবে সেই সব কাজ গুলো যেগুলো একই সাথে ইমপর্টেন্ট এবং আর্জেন্ট। যেমন ধরুন আপনার পড়াশোনা, Workdate লাইন কিংবা হেল্থ রিলেটেড বিষয়গুলো এই কাজগুলো যত দ্রুত সম্ভব ম্যানেজ করা প্রয়োজন অন্যথায় আপনি ইমিডিয়েট ইম্প্যাক্ট দেখতে পাবেন।

Task 2 এ থাকবে আপনার সেই কাজগুলো যেগুলো ইম্পোর্টেন্ট কিন্তু আর্জেন্ট না। এমন নতুন কোন স্কেল শেখা, বইপড়া, মেডিটেশন ইত্যাদি। এই কাজগুলোতে গরিমশি করলে হয়তো ইনস্ট্যান্ট কোন ইফেক্ট পড়বে না কিন্তু পরবর্তীতে আপনি সমস্যায় পড়বেন। তাই এই কাজগুলো তো আপনাকে যথেষ্ট ফোকাশ করতে হবে।

Task 3 এর কাজ গুলো হলো ইম্পর্টেন্ট না কিন্তু আর্জেন্ট। এগুলো হতে পারে বন্ধুদের সাথে ঘুরতে যাওয়া বা আড্ডা দেওয়া মাঝে মধ্যে একটু চেঞ্জ এর জন্য এসবের দরকার আছে ঠিকি। কিন্তু যতটা সম্ভব এই কাজগুলো আপনি অভয়েড করে চলার চেষ্টা করবেন।

Task 4 এর কাজ গুলো হলো এই কাজ গুলো যেগুলো ইম্পোর্টেন্ট কোনটাই না। যেমন ধরুন এন্টারটেইনমেন্ট এক্টিভিটিস অর্থাৎ মুভি দেখা কিংবা সোশ্যাল মিডিয়া ঘাটা ইত্যাদি। দিনের খুবই অল্প সময়ে কাজগুলোতে দেওয়ার চেষ্টা করুন। So, Technique number 1: Use the Task Management Quadrant

পরবর্তী টেকনিকটা হলো ব্রায়ান ট্রেসির ABCDE Model যখনই আপনি আপনার সারাদিনের কাজের রুটিন তৈরি করবেন তখনই আপনি ABCDE ক্যাটাগরিতে কাজগুলোকে ভাগ করে ফেলবেন। এই ক্যাটাগরির কাজগুলো Highly Important আর এই কাজগুলো আপনাকে করতে হবে Any Who এই ক্যাটাগরির কাজ গুলো একটু কম Important কিন্তু তবুও এই কাজগুলো যতটা সম্ভব করার চেষ্টা করবেন। এই ক্যাটাগরির কাজগুলো নিয়ে তৈরি লিস্টগুলো যেগুলো আপনি অন্য কাউকে এসাইন করে দিতে পারবেন।

তো আপনি এগুলো অন্য কাউকেই ডেলিগেট করে দেবেন। এই ক্যাটাগরির কাজগুলো তেমন একটা ইম্পর্টেন্ট না তাই এই কাজগুলো আপনি এলিমিনেট করে দেবেন। এই ABCDE মডেলের একটা নিয়ম হলো আপনি B ক্যাটাগরির কাজগুলো তখনই করতে শুরু করতে পারবেন যখন আপনার A ক্যাটাগরির সমস্ত কাজ কমপ্লিট হয়ে যাবে অর্থাৎ আগের ক্যারিয়াগে করে তারপর আপনাকে পরের ক্যাটাগরিতে যেতে হবে। এই মডেল আপনার ডেইলি টাস্ক সম্পন্ন করার জন্য অনেক ইউজফুল একটা মডেল। So, Technique number 2: Use the ABCDE Model

তৃতীয় টেকনিকটা ব্রায়ান ট্রেসি লেখায় ইন্টারন্যাশনাল বেস্ট সেলিং বুকস Eat That FROG থেকে নেওয়া। এই বইতে FROG বলতে তিনি বুঝিয়েছেন দিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজটিকে আর এই সবচেয়ে বড় Frogটাকে আপনাকে দিনের শুরুতে সবার আগে খেয়ে শেষ করে দিতে হবে অর্থাৎ আপনি এটা নিশ্চিত করবেন যেন আপনার সবচেয়ে ইম্পরট্যান্ট আর বড় কাজটা দিনের প্রথমে শেষ হয়ে যায়। আপনি এভাবে অলরেডি ঐদিনের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জটাকে শেষ করে ফেলবেন। So, Technique number 3: Complete the biggest and most important task first

ফাইনাল যে কনসেপ্টটা আপনি ফলো করতে পারেন আপনার Daily routine এর জন্য সেটা হলো আমার লিস্ট পাওয়ার।পাওয়ার লিস্ট হলো Andy Frisella যিনি একজন Entrepreneur, YouTuber And Author তার দ্বারা প্রচারিত একটা টেকনিক। পাওয়ার লিস্ট একটা সাধারন Task যেখানে আপনার দিনের সবচেয়ে Important পাঁচটি টাচ লিস্ট করা থাকবে। Andy Frisella মতে আমাদের প্রতিদিন শুধুমাত্র সবচেয়ে Important পাঁচটি কাজের ওপর ফোকাশ করা উচিত। বেশি কাজ মানে বেশি সাকসেস না।

প্রতিদিন দশ-পনেরোটা করে কাজ করাচ্ছে মনোযোগের সাথে পাঁচটা কাজ করলে ওই পাঁচটা কাজের কোয়ালিটি অনেক বেটার হবে আর যদি আপনি এই পাঁচটি কাজ কমপ্লিট করতে পারেন তাহলে আপনি সেই দিন জয়ী হবেন। এভাবে আপনার দিনগুলো একটা গেমের মত হয়ে উঠবে আর আপনি আপনার সবচেয়ে বেস্ট টা দেওয়ার জন্য উৎসাহ পাবেন। কিন্তু যদি আপনি হেরেও যান চিন্তা করবেন না কারণ আপনার জন্য পরের দিন আবার নতুন করে এই গেমটা অপেক্ষা করছে। So, Technique number 4: Make a Power List

তো চলুন আজকের আর্টিকেলটি সামারি করা যাক।

1. Use the Task Management Quadrant
2. Use the ABCDE Model
3. Complete the biggest and Most important task first
4. Make a Power List

আশা করি সবাই সবকিছু বুঝতে পেরেছেন। কোথাও সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানাবেন অথবা ফেসবুকে জানাতে পারেন ফেসবুকে আমি


The post ৪টি সহজ উপায় আপনার দৈনন্দিন কাজের Daily Routine বানান খুব সহজেই appeared first on Trickbd.com.

Source:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *