বলি”

 

জনরা – ড্রামা,অ্যাকশন

 

Screenshot

স্পয়লারবিহীন-

 

গল্পের শুরু হয় অত্যাচারীর অত্যাচারের নিদর্শন দিয়ে।

 

আবিষ্কার হয় মৃত প্রায় এক যুবকের দেহ। তারপর তাকে ঘিরে শুরু গল্পের প্রবাহ।

 

সে হয়ে উঠে গল্পের মজলুম। তারপর… একের পর এক টুইস্ট দিয়ে গল্পের পরিক্রমা বর্ধমান থাকে।

 

সে কি পারে অত্যাচারীর বিনাশ করতে? কেনই বা তার মজলুম হয়ে ওঠা? কি তার পরিচয়? জানতে হলে দেখতে হবে সিরিজটি।

 

এই সিরিজে চঞ্চল চৌধুরী নিজেকে আরও ছাপিয়ে গেছেন।

 

পলাশ,সালহউদ্দিন লাভলু সহ গল্পের মজলুম যুবক যিনি তাকদীরেও অসাধারণ ছিলেন এবং অন্যান্যরা নিজেদের সেরাটা দিয়েছেন।

 

বেশিরভাগ চরিত্রের আলাদা আলাদা আকর্ষণ ছিল যা অমনোযোগী না হতে বাধ্য করেছে।

 

আমার মতে এখন পর্যন্ত হইছইয়ের সবচেয়ে সেরা সিরিজ হলো

 

#বলি আর বাংলাদেশের’তো সেরাই! মহানগর,ত্বাকদীরকে ছাড়িয়ে গেলো! অভিনয় নিয়ে এই সিরিজের এক্টরদের নিয়ে আলাদা করে লিখতে হবে না,সবাই সেরাটা দিয়েছেন।

 

ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক,লোকেশন,সাউন্ড কোয়ালিটি,ক্যামেরার কাজ!!!! পুরা মাখন।

 

টাইটেল সংটা অনেক ভালো লেগেছে,গেয়েছেন শিরোনামহীন ব্যান্ডের আগের ভোকালিষ্ট তানজির চৌধুরী তুহিন। সিরিজটির প্রেজেন্টেশন ছিলো জাস্ট অসাধারণ!

 

অসম্ভব সুন্দর এই মেকিংটির কারণেই সিরিজটি দেখতে ভালো লাগবে।

 

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দর্শন আটকে রাখার মতো একটি সিরিজ।

 

অভিনয়ের দিকে যদি আসি তাহলে চঞ্চল চৌধুরীকে নিয়ে যা বলবো তাই কম হয়ে যাবে।

 

নিজের চরিত্রে প্রবেশ করতে পারলে বোঝার ক্ষমতা নেই আসল না অভিনয়। সোহেল মন্ডল এবং জিয়াউর হক পলাশ দুর্দান্ত ছিলেন।

 

ডায়লগ ডেলিভারি ছিলো মানানসই। সব থেকে ভালো লেগেছে নাসির উদ্দীন খানকে! কি অভিনয় করে লোকটা! সোহানা সাবা এবং সাফা কবীর এখানে অনেক ভালো করেছেন।

 

সাফা কবীরের এক্সপেশন গুলো ভালো ছিলো যখন যেমন যাচ্ছিলো এক্সপেশনের পরিবর্তন হচ্ছিল সুন্দর ভাবে।

 

অন্যদিকে ইরেশ যাকের এবং সালাউদ্দিন লাভলু তাদের যায়গায় সুন্দর কাজ করেছেন।

 

মোট কথা অভিনয় নিয়ে প্রশ্ন তোলার সুযোগটা কোনো শিল্পীই রাখেন নি। এবার আসি লোকেশন, ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক এবং কালারের কাজে।

 

গল্পের প্লট অনুযায়ী লোকেশনটা ঠিক ছিলো। যারা দেখবেন তারা বুঝতে পারবেন।

 

ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক আমার কাছে বেশি ভালো লেগেছে কারণ বেশির ভাগ সময় ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকের কারণেই একটা সুন্দর কাজ বাজে হয়ে যায়।

 

কালার গ্রেডিং দৃশ্যপট হিসেবে ঠিক আছে। সব থেকে ভালো লেগেছে অ্যাকশন সিন গুলো!

 

দেখেই মনে হচ্ছিলো অনেক যত্ন করে পরিশ্রম করে কাজটা করা হয়েছে। প্রতিটি কাজেরই কিছু দূর্বলতা থাকবে।

 

এখানেও আছে তবে সেটি ইফেক্ট ফেলবে না। সব মিলে ভালো একটি সিরিজ।

 

উপভোগ করার মত একটি কাজ। সিরিজে গালিগালাজ আছে, কিছু দৃশ্য আছে যা আসলে গল্পের প্রয়োজনে ব্যবহার করা।

 

ছেঁড়াদিয়ার সিংহাসন কার দখলে আসবে সেটি জানতে হলে ‘বলি’ সিরিজটি দেখলে।

 

যারাই দেখবেন ভালো লাগবে, এটা বলতে পারি।

 

Link: Boli Bangla Web Series

 

#হ্যাপি_ওয়াচিং

The post Boli (বলি) বাংলা ওয়েব সিরিজের রিভিউ + লিংক | চঞ্চল চৌধুরীর আরেকটি মাস্টারপিস সিরিজ! appeared first on Trickbd.com.

Source: