সাধারণ তথ্য:


VPN কী?

VPN এর পূর্ণরূপ হলো “Virtual Private Network” যা ইন্টারনেট ব্যবহারের সময় এর ব্যবহারকারীকে পাবলিক ইন্টারনেট সার্ভারে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে । ভিপিএন তার ব্যবহারকারীর অনলাইন এ ব্যবহৃত ট্রাফিককে এনক্রিপ্ট করে ও অনলাইনে এর ব্যবহারকারীর পরিচয়কে গোপন করে একটি ছদ্মবেশী রূপ দান করে৷ ফলে তৃতীয় পক্ষের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর ট্রাফিক সোর্স, বা তার ডেটা চুরি কঠিন হয়ে পরে। ভিপিএন রিয়েল টাইমে ডেটা এনক্রিপ্টশনে সক্ষম একটি প্রযুক্তি।

ভিপিএন(VPN) কীভাবে কাজ করে?

একটি ভিপিএন তার হোস্ট দ্বারা পরিচালিত বিশেষভাবে কনফিগার করা রিমোট সার্ভার এর মাধ্যামে নেটওয়ার্ক কে পুনঃনির্দেশিত করে তার ব্যবহারকারীর আইপি এড্রেসকে হাইড করে। এর অর্থ হলো আপনি যদি ভিপিএন ব্যবহার করে অনলাইনে যুক্ত থাকেন তাহলে আপনার ডেটার উৎস হয়ে উঠবে ভিপিএন সার্ভার। এর ফলে আপনার ইন্টারনেট সেবাদান কারী প্রতিষ্ঠান (আইএসপি) বা আপনার সার্ভার ( মূলত বাংলাদেশীদের জন্য আমরা ধরতে পারি এটি একটি সার্ভার) বা তৃতীয় কোনো পক্ষ আপনি কোন ওয়েবসাইট ভিজিট করছেন বা অনলাইন এ কার সাথে যুক্ত হচ্ছেন,, কি ডেটা আদান প্রদান করছেন তা ট্র্যাক করতে পারবে না। এটি মূলত আপনার সার্ভারকে কাজে লাগিয়ে আপনার সকল ডেটাকে gibberish এ পরিণত করে৷ ফলে আপনার সার্ভার বা মনিটর যা আপনার ডেটা সর্বদা পর্যবেক্ষণ করতে সক্ষম বা করতে চায় তাকে অকেজো করে দেয়৷

ভিপিএন কানেকশন কি তবে নিরাপদ?

ভিপিএন কানেকশনের ফলে এটি ব্যবহারকারীকে তার আসল আইডেন্টিটির বদলে নতুন একটি আইডেন্টিটি দেয়। যার ফলে মূল ইউজারকে আইডেন্টিফাই করা কঠিন হয়ে পড়ে৷ সাধারণভাবে কিছুটা চালাক ও হ্যাকিংয়ের ব্যাসিক আইডিয়া থাকলেই কিন্তু যে কেউ এটাক দিয়ে বিভিন্ন তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে। কিন্তু ভিপিএন ব্যবহারে এই ডেটা একসেস অনেকটা কঠিন হয়ে পরে এমনকি অনেকক্ষেত্রে সাইবার অপরাধী বা হ্যাকারাও সেক্ষেত্রে এক্সেস নিতে পারে না। কারণ সম্পূর্ণ নেটওয়ার্কটাই তখন ভার্চুয়ালে রান হয়।

কেন ভিপিএন ব্যবহার করা উচিৎ?

আপনি যখন ইন্টারনেট সংযোগ নেন তখন আপনাকে ISP (Internet Service Provider) একটি নির্দিষ্ট আইপির মাধ্যমে কিন্তু ট্র্যাক করে। আপনি কি করছেন, কোথায় কোথায় লগইন করছেন সবই তারা দেখে। চাইলে MIM (Man in the Middle) অ্যাটাকের মাধ্যমে পাসওয়ার্ড/অন্যান্য তথ্য ও হাতিয়ে নিতে পারে। এসব সমস্যা থেকে বাঁচার জন্য VPN খুব কার্যকর একটি মাধ্যম।

এছাড়াও যখন আপনি কোনো পাবলিক ওয়াইফাই ব্যবহার করেন, তখন কোনো সাইটে লগ ইন বা যেকোনো তথ্য আাদান প্রদান করার সময় অথবা টাকা আদান প্রদানের সময় আপনার একাউন্ট নাম্বার পিন সব কিছু ওই ওয়াইফাই ব্যবহারের ফলে যে কেউ সহজেই ট্র্যাক করতে পারে। এক্ষেত্রেও MIM Attack ও অন্যান্য টুলস ব্যবহার করা হয়। কিন্তু VPN পুরো নেটওয়ার্ক সিস্টেমটাকেই ভার্চুয়াল করে ফেলে। তাই কেউ আর সরাসরি ডিভাইসে এক্সেস পায়না। ফলে কিছুটা নিরাপদ থাকা যায়।
তাই এসব ক্ষেত্রে ভিপিএন ব্যবহার করা জরুরী৷

মূল পর্ব:


iTop VPN কী?

 

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের VPN বর্তমান বাজারে প্রচলিত রয়েছে।  iTop VPN তার মধ্যে অন্যতম। যখন এটি প্রথম রিলিজ হয় তখন সবাইকে লাইফটাইম ফ্রি VIP Membership দিয়েছিলো। যদিও তা শুধু এন্ড্রয়েড ডিভাইসেই ব্যবহার করা যায়। সে যাই হোক, প্রচলিত অন্যান্য VPN এর মত iTop ও বেশকিছু ফিচার দিয়ে থাকে। নিচে সেগুলো হাইলাইট করার চেষ্টা করব।

iTop VPN ই কেন……?

iTop VPN অন্যান্য সাধারণ ভিপিএনের মত রেস্ট্রিকশন বাইপাস করার সুবিধা দেয়ার পাশাপাশি আরো কিছু ফ্যাসিলিটিস দিয়ে থাকে।
উল্লেখযোগ্য কিছু নিচে নোট করা হলো।

  • Military-grade encryption
  • Over 1800 global network servers for the specific use of
    Downloading, Streaming, Social, or Gaming.
  • Offers TCP, UDP, HTTPS
    connection protocols for different purposes.
  • Defends against DNS attacks.
  • Auto cleans browsing
    privacy.
  • Disables the Internet connection with Kill Switch
  • Allows you to configure your
    IP as static or dynamic with IP configure
  • Provides an IP checker tool for free

মোদ্দাকথা হলো, iTop VPN শুধু Region Block বাইপাসের জন্য নয় এটি প্রাইভেসি রক্ষার জন্যও অন্যতম সেরা ভিপিএন বলা চলে।

কোন কোন বিষয়গুলো iTop VPN কে এতটা স্পেশাল করে তুলেছে…….?

  • P2P and Torrenting: iTop VPN – এর রয়েছে দ্রুতগতির P2P সার্ভার যা টরেন্ট আপলোড ও ডাউনলোডের ক্ষেত্রে গোপনীয়তা নিশ্চিত করে।
  • Unblock Streaming Services: এটি – Netflix, BBC iPlayer, DisneyPlus, Hulu, HBO
    Max, Paramount Plus, ও Peacock streaming এর ক্ষেত্রে খুব ভালোভাবেই কাজ করে।
  • Unblock Social Networks: বিভিন্ন সময়ে যখন সার্ভার ব্লক দেয় তখন- WhatsApp, Telegram, Skype, Facebook,
    Twitter, ও অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াগুলো আনব্লকে খুবই কার্যকর।
  • Unblock Popular Games: এর রয়েছে আলাদা VPN সার্ভার যা শুধু PUBG, Roblox, and Call
    of Duty Warzone ইত্যাদি গেইমের High Ping প্রবলেম দূর করতে ব্যবহৃত হয়।
  • Unblock Secret Garden:  এই দিকটা নিয়ে কিছু না বলাই ভালো।
  • Quick Access feature: iTop VPN – ব্যবহারকারীকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কোন সার্ভার ব্যবহার করতে হবে তার জন্য পরামর্শ দেয়।
  • Private Browsing: এটি অটোমেটিং মনিটরিংয়ের মাধ্যমে নেটওয়ার্কে কোনো ব্রীচ থাকলে তা ডিটেক্ট করে ব্লক করে দেয়। ফলে থার্ডপার্টি আর এক্সেস পায়না।
  • Block Ads: iTop VPN – আবার এডস ও ব্লক করে। যাতে করে ম্যালওয়ার ও অন্যান্য ক্ষতিকর কিছু যেন ডিভাইসে আক্রমণ করতে না পারে।
  • Deep Security Reinforce: এই VPN – পিসির সিস্টেমকেই স্ক্যান করে হ্যাকিং/ম্যালওয়্যার এটাকের সম্ভাবনা দেখে সেগুলো ও ফিক্স করতে পারে।
  • IP Configure: iTop VPN – ব্যাবহারকারীর প্রয়োজনমতো static অথবা dynamic IP সেট করতে পারে পাশাপাশি IPv6
    কানেকশন সেট করে যাতে নিরাপদ কানেকশনের বিষয়টি নিশ্চিত হয়।
iTop VPN সম্পর্কে আরো জানতে নিচের লিংকগুলো ফলো করুন।

Facebook: https://www.facebook.com/itopvpn/
Twitter: https://twitter.com/ItopVpn
Official website: https://www.itopvpn.com/

আশাকরি উপরের লেখাগুলো পড়ে ভিপিএন ও iTop VPN সম্পর্কে আইডিয়া ক্লিয়ার হয়েছে। এবার আসি Giveaway এর বিষয়ে।

Giveaway………………!!


সব ডিভাইসে ব্যবহার করার মত মাত্র ১ টি একাউন্ট রয়েছে যা শুধু ৫ জন একত্রে ইউজ করতে পারবে। তাই সবাইকে দেয়া কোনোভাবেই সম্ভব নয়। যাদের একান্ত প্রয়োজন তারা TrickBD এর Discord সার্ভারে #resource-request চ্যানেলে মেসেজ দিবেন। তবে ওখানে আরো কিছু VPN এর প্রিমিয়াম একাউন্ট দেয়া হয়েছে যা সবাই ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন: Seed4.Me VPN এর ৬ মাসের প্রিমিয়াম একাউন্ট পাওয়ার ট্রিক্স শেয়ার করেছিলাম কিছুদিন আগে। তাছাড়া অগণিত কোর্স/রিসোর্স ফ্রিতে পেয়ে যাবেন।

সংশ্লিষ্ট:


iTop VPN কয়েকটি প্লাটফর্মে কাজ করে। যেমন:

  • Android
  • iOS
  • Windows
  • Mac

ডাউনলোড করতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন। সব ডিভাইসের জন্যই ডাউনলোড করা যাবে। সাইজ ও তুলনামূলকভাবে কম।
Download Here

এর আবার কয়েকটি প্যাকেজ ও রয়েছে। তবে সেগুলো মূলত দুইভাগে বিভক্ত।

  1. Free
  2. Premium

গরিবদের জন্য ফ্রি-ই ভরসা। তবে ফ্রিতে প্রিমিয়াম সাবস্ক্রিপশনের সুবিধা পেলে মিস না করা-ই উত্তম। অনেকে রিসোর্স শেয়ার করে। এগুলো নজরে রাখলে হারহামেশাই পাওয়া যায় কিছু না কিছু। তবে যারা প্রফেশনাল কাজে VPN ইউজ করেন তাদের জন্য ভালো কোনো VPN দেখে প্রিমিয়াম সাবস্ক্রিশন কেনা উত্তম। বিশেষ করে যারা রিমোট জব/আর্নিং নিয়ে আছেন তাদের ফ্রি ভিপিএন ইউজ না করা-ই ভালো। এগুলো সঠিকভাবে সার্ভিস দিতে ব্যর্থ হয়।
ভিপিএন সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান না থাকায় অনেকে নেগেটিভলি নেন এটিকে। কিন্তু অনলাইনে ভিপিএন অনেক বড় একটি ফ্যাক্ট। যারা রিমোট জব/আর্নিং নিয়ে আছেন তারাই এর মর্ম ভালো বুঝবেন অন্যদের চেয়ে।

দৃষ্টি আকর্ষণঃ


বিনা অনুমতিতে লেখার কোনো অংশ কপি করার চিন্তাও করবেন না।
আশা করি মনে রাখবেন কথাটা।

আর একান্তই যদি কোনো প্রয়োজন হয়,তবে ফেইসবুকে ও টেলিগ্রামে নক করতে পারেন।
আর ইচ্ছে করলে আমার YouTube চ্যানেল থেকে ঘুরে আসতে পারেন।
নিয়মিত আপডেট পেতে আশা করি Subscribe করে রাখবেন।

TrickBD Official Discord Server এ এড হয়ে যান।
এখানে অফিসিয়াল সাপোর্ট+ভালো ভালো লেখক ও কন্ট্রিবিউটরদের পাবেন।
এছাড়াও আরো অনেক সুবিধা দিচ্ছে ট্রিকবিডি থেকে।

সাথেই থাকুন।

“ধন্যবাদ”

The post [iTop VPN Review & Giveaway] VPN কী, কেন, কোথায়, কখন, কীভাবে? appeared first on Trickbd.com.

Source: