Redmi Note 8 মোবাইল বাংলা রিভিউ। আমার ব্যবহার করা সেরা ফোন।

Posted on

শাওমি ‘ মোবাইল ব্র্যান্ড আস্তে আস্তে সবার কাছেই অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে৷ হবে নাই বা কেনো। সবার হাতে থাকা বাজেটের মধ্যেই এই ব্র্যান্ডটি দিচ্ছে অসাধারন সব ফোনের মডেল, যা অন্য মোবাইল ব্র্যান্ডগুলো করতে পারেনি। যারা করেছে, তারা এতোটা বাজেটের মধ্যে করতে পারেনি। বর্তমানে ‘শাওমি’ তাদের মোবাইলের বাজার চালিয়ে যাচ্ছে অনদ্যম ধাচের সাথে। তারা মোবাইল মার্কেটে অন্য সব দামী ব্র্যান্ডকে পিছনে ফেলে সামনে এগুচ্ছে প্রতি বছর। তাদের ধারাবাহিকতা তারা বজায় রাখছে ধাপে ধাপে। এই ধারাবাহিকতায় ‘শাওমি’ বাজারে নিয়ে এলো তাদের নতুন আরেকটি ফোনের মডেল৷ যার নাম ‘Redmi Note 8’। যেটাকে ‘শাওমি’ রিলিজ করে ২০১৯ সালের, আগস্ট মাসে। স্মার্টফোনটি বাজারে বের হওয়ার সাথে সাথে সারা ফেলে দেয়। চলুন নিচে গিয়ে দেখে আসা যাক এই ফোনের বিস্তারিত কিছু তথ্যঃ

বডিঃ

‘Redmi Note 8’ ফোনটির বডি ডিমেনশনে থাকছে ১৫৮.৩×৭৫.৩×৮.৪ মিলিমিটার এবং সাথে স্ক্রিনের সামনে থাকছে গ্লাস বডি। যেটা ‘গরিলা গ্লাস ৫’ এর লেয়ার। ফোনটির ব্যাকেও সেইম গ্লাস থাকলেও সাইডে ব্যাবহার করা হয়েছে প্লাস্টিক। যেটা দেখতেও খুব সুন্দর। সব মিলিয়ে এই ফোনটির ওজন ১৯০ গ্রাম। থাকছে ডুয়্যাল সিমের স্লট। যেখানে ন্যানো সিম ব্যাবহার করা যাবে।

ডিসপ্লেঃ

‘redmi note 8’ ফোনটিতে ডিসপ্লের সাইজ দেয়া হয়েছে ৬.৩ ইঞ্চি (৯৭.৪ সেমি২)। স্ক্রিন থেকে ডিসপ্লেটির বডির রেশিও ~৮১.৭%। ডিসপ্লেটি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে (১৬ এম কালারস)। এই ডিসপ্লেটির রেজুলেশন হচ্ছে ১০৮০×২৩৪০ পিক্সেলের। ডিসপ্লেটির ডেনসিটি ৪০৯ পিপিআই।

প্লাটফর্মঃ

‘Redmi note 8’ ফোনটির অপারেটিং সিস্টেমে দেয়া হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড। যেটা ৯.০ (পাই) অ’এস ভার্সন। সিপিইউ’তে থাকছে ‘অক্ট্যা কোর’ এবং জিপিইউ’তে ‘এদ্রেনো ৬১০’। চিপসেটে আছে প্রসেসর হচ্ছে ‘ কোয়ালকম এসডিএম৬৬৫ স্ন্যাপড্রাগন ৬৬৫’।

ক্যামেরাঃ

ব্যাকঃ এই ফোনটির পিছনে থাকছে চারটি ক্যামেরা৷ সেগুলো হচ্ছে ৪৮ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড, ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রাওয়াইড, ২ MP মেক্রো এবং ২ MP ডেপথ সেন্সর। সাথে থাকছে এলইডি ফ্ল্যাশ, এইচডিআর এবং প্যানোরামা মোড।
এই ক্যামেরা দিয়ে ২১৬০@৩০এফপিএস’র ভিডিও রেকর্ড করা সম্ভব।
ফ্রন্টঃ এই ফোনের সামনে, ডিসপ্লের মাঝ বরাবর দেয়া হয়েছে একটি ১৩ মেগাপিক্সেলের ইন ডিসপ্লে ক্যামেরা। যেটা দিয়ে আপনি ১০৮০পি পর্যন্ত ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

মেমোরীঃ

‘Redmi Note 8’ তাদের এই ফোনটি বাজারে ছাড়ে তিনটি ভ্যারিয়্যান্টে। সেগুলো হচ্ছে ৩/৩২, ৪/৬৪, এবং ৪/১২৮। কার্ড স্লটে ব্যাবহার করতে পারবেন মেমোরি কার্ড। যেটা সর্বোচ্চ ২৫৬ জিবি পর্যন্ত হতে হবে।

নেটওয়ার্কঃ

‘Redmi Note 8’ এবার তাদের নেটওয়ার্কে কোনো পরিবর্তন আনেনি। বরাবরের মতোই তারা এই ফোনেও প্রয়োগ করেছে ৪জি নেটওয়ার্ক স্পিড। ফোনটির ‘নেটওয়ার্ক টাইপে’ রয়েছে ‘জিএসএম/এইচএসপিএ/এলটিই। ২জি’তে রয়েছে ‘জিএসএম ৮৫০/৯০০/১৮০০/১৯০০/- সিম ১ & সিম ২। ৩জি’তে রয়েছে ‘এইচএসডিপিএ ৮৫০/৯০০/২১০০। ৪জি’তে রয়েছে ‘এলটিই’। ‘Note 8’ ফোনটির নেটওয়ার্ক স্পিডে রয়েছে ‘এইচএসপিএ, এলটিই-এ’। আরও থাকছে ‘জিপিআরএস’ এবং ‘এজ’।

সাউন্ডঃ

‘Redmi Note 8’ ফোনটিতে দাম হিসেবে এর সাউন্ড ছিলো অসাধারন। খুব ক্লিয়ারও ছিলো বটে। ফোনের নিচে চার্জিং পোর্টের সাইডের জায়গায় এই সাউন্ড ব্লাস্টার রয়েছে। আরও থাকছে ৩.৫ মি.মি.’র একটি ইয়ারফোন জ্যাক।

ব্যাটারীঃ

ফোনটিতে থাকছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সহ ৪০০০ এমএইচের ব্যাটারী। এই ব্যাটারিটি নন রিমুভেবল।

ফিচারঃ

এই ফোনটির পিছনে মাঝামাঝি জায়গায় দেয়া হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। যেটা অনেক ফাস্ট ছিলো। সেন্সরে আরও থাকছে অ্যাক্সেলেরেমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি এবং কম্পাস।

যেসব পরিবর্তন রয়েছে এই ফোনেঃ

‘শাওমি’ স্বভাবত এই ফোনটিতে কোনো পরিবর্তন আনেনি। শুধু ক্যামেরার সংখ্যা এবং ডিজাইনে পরিবর্তন ছাড়া এই ফোনে সেরকম কোনো পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়নি।

দামঃ

তিনটি ভ্যারিয়্যান্টের মধ্যে বাংলাদেশে সবগুলোই পাওয়া যাচ্ছে দুটি। সেগুলোর দাম হচ্ছে ৩/৩২ – ৳১৭,৪৯৯.. ৪/৬৪ – ৳১৮,৯৯৯ এবং ৪/১২৮ – ৳২০,৯৯৯।

তো এখন অনেকেই বলতে পারেন যে, মোবাইলটি তো দুই বছর আগের তো আজকে রিভিউ লেখার কারণ। কারণ হলো মোবাইলটির খুবই ভালো পারফর্মেন্স। যা এখনো পর্যন্ত ধরে রেখেছে। আসলে এটা বলার বাইরে যে ফোনটি এখনো আগের মতো পারফর্মেন্স দিচ্ছে এবং এতে কোনো সমস্যা হয়নি। তার জন্য এটা লেখা।

মন চাইলে আমার গল্প রিলেটেড ব্লগ সাইটটি ঘুরে আসতে পারেন। বই উৎসব এর সেরা বই ! দেখে নিন সব কটির রিভিউ !

তো আজ এ পর্যন্তই। সবাই ভালো থাকবেন। সুস্থ থাকবেন।

The post Redmi Note 8 মোবাইল বাংলা রিভিউ। আমার ব্যবহার করা সেরা ফোন। appeared first on Trickbd.com.

Source:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *